সরকারি কর্মকর্তাদের এসিআরে পরিবর্তন আসছে - Jamuna.News
ব্রেকিং নিউজ

সরকারি কর্মকর্তাদের এসিআরে পরিবর্তন আসছে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা : সরকারি কর্মকর্তাদের এসিআরের বদলে অ্যানুয়েল পারফরম্যান্স অ্যাপ্রাইজাল রিপোর্ট (এপিএআর বা বাৎসরিক কর্ম মূল্যায়ন প্রতিবেদন) প্রণয়ন করতে যাচ্ছে সরকার। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ধারণা নিয়ে তৈরি হতে যাওয়া এপিএআরের খসড়া প্রস্তুত করা হয়েছে।
সরকারি দপ্তরে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছ থেকে অধস্তন কর্মকর্তাদের এসিআরের আকাঙ্ক্ষিত মূল্যায়ন পেতে চিন্তার অন্ত থাকে না। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বা ‘বস’ যা বলেন এসিআরে তাই চূড়ান্ত। গোপনীয় প্রতিবেদনে ‘বস’ কী মূল্যায়ন করলেন জানার উপায় থাকে না।

জানা গেছে, গ্রেড-৯ থেকে গ্রেড-২ পর্র্যায়ের সরকারি কর্মকর্তারা এর আওতায় আসবেন। শিগগিরই এই সংক্রান্ত প্রস্তাব প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটিতে পাঠাবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, আমাদের লক্ষ্য সঠিক জায়গায় সঠিক অফিসারকে পদায়ন করা। এর জন্য প্রত্যেক অফিসারের কর্মভিত্তিক প্রোফাইল থাকা প্রয়োজন। এটা না থাকায় শুনে শুনে অফিসার বাছাই করতে হয়। কিন্তু এপিএআর চালু হলে সংশ্লিষ্ট অফিসারের প্রোফাইলের ভিত্তিতে বাছাই করা সম্ভব হবে। তিনি বলেন, এটা অনেক বড় কাজ হচ্ছে। যা সরকারি কাজের সেবায় বিশাল পরিবর্তন আনবে বলে আমার বিশ্বাস।

বর্তমান এসিআরের পুরোটাই ব্যক্তিগত ও পেশাগত বৈশিষ্ট্যের মূল্যায়ন হয়। যেমন-ব্যক্তিত্ব, সময়ানুবর্তিতা, সততার ইত্যাদির মতো ২৫টি মানদণ্ড আছে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্মচারী বছরব্যাপী কী কাজ করলেন, করলে ঠিকমতো করেছেন কিনা সেটার মূল্যায়ন নেই। অর্থাৎ বিদ্যমান এসিআরের ১০০ নম্বরের পুরোটাই বৈশিষ্ট্যনির্ভর। কিন্তু এপিএআরে কর্মচারীর ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্যের নম্বর থাকে ৪০। আর বছরব্যাপী কাজের মূল্যায়নের নাম্বার হবে ৬০।

সূত্রমতে, বর্তমানে এসিআরের সময়কাল জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর ধরা হয়। এপিআরএতে সময়কাল হবে অর্থবছরকেন্দ্রিক অর্থাৎ জুলাই থেকে জুন পর্যন্ত। কারণ এপিএআরকে অ্যানুয়েল পারফরম্যান্স অ্যাগ্রিমেন্টের (এপিএ) সঙ্গে যুক্ত করে মূল্যায়ন করা হবে। প্রত্যেক কর্মচারীর নিজস্ব অর্জন ও প্রাতিষ্ঠানিক অর্জন মিলিয়ে এপিএআর নির্ধারণ হবে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ব্রিটিশ-পাকিস্তানি ধারার বর্তমান এসিআর পদ্ধতিতে কিছু বিষয় যোগ করা হলেও মৌলিক পরিবর্তন ছিল না। এবার সেই জায়গাতে হাত দেওয়া হয়েছে।

এপিএআর-খসড়া প্রসঙ্গে জন প্রশাসননের একজন কর্মকর্তা জানান, এটা চালু হলে এসিআর ভীতি আর থাকবে না। কাজের ভিত্তিতে সরকারি চাকুরেরা নিজেরাই নিজেদের মূল্যায়ন করতে পারবেন। এতে করে দেশব্যাপী সরকারি কর্মচারীদের জবাবদিহি বাড়বে।

Print Friendly, PDF & Email