এক যাত্রী নিয়েই শারজাহ গেল এয়ার আরাবিয়া - Jamuna.News
ব্রেকিং নিউজ

এক যাত্রী নিয়েই শারজাহ গেল এয়ার আরাবিয়া

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা : একমাত্র যাত্রী হিসেবে বিমানে ভ্রমনের দূর্লভ অভিজ্ঞতা অর্জন করলেন সিলেটের মিসির আলী। শুধুমাত্র তাকে নিয়েই শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়েছে এয়ার আরাবিয়ার একটি নিয়মিত ফ্লাইট।

মঙ্গলবার রাত আড়াইটায় তাকে বহনকারী এয়ার আরাবিয়ার একটি এয়ারক্রাফট শারজাহর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।

জানা যায়, করোনার কারণে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সাথে ফ্লাইট চলাচল ও যাত্রী প্রবেশ বন্ধ রয়েছে গত ১২ মে থেকে। তাই এই প্রথম মাত্র একজনকে নিয়েই আকাশে উড়লো বিমান। করোনা মহামারিতে এয়ার এরাবিয়ার মতো অনেক এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটেই ঘটছে এমন ঘটনা। ঢাকা থেকে শারজাহ যাওয়ার জন্য বিমানে উঠেছিলেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের ব্যবসায়ী মো মিসির আলী। তিনি বিশেষ পাস নিয়ে এয়ার এরাবিয়ার একটি টিকিট নিয়েছিলেন। ফ্লাইটে উঠেই অবাক হয়ে যান তিনি। কারণ এয়ার এরাবিয়ার যে ফ্লাইটে করে তিনি দুবাই যাচ্ছিলেন, সেখানে যাত্রী তিনি একাই। একরকম ব্যক্তিগত ফ্লাইটের মতোই অবস্থা।

করোনার আগে ঢাকা থেকে দুবাই শারজাহ ছিল এয়ারলাইন্সগুলোর জন্য সবচেয়ে আকর্ষণীয় রুট। এপথে অনেক যাত্রী পাওয়া যেত। কিন্তু দুবাই অথরিটি সে দেশে প্রবেশ নিষিদ্ধ করায় যাত্রী ও এয়ারলাইনস গুলো পড়েছে বিপাকে।

ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের (আইএটিএ) তথ্য অনুযায়ী, এই খাতে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ প্রতিনিয়ত বাড়ছে। ২০২০ সালে বিশ্বব্যাপী করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর ধারণা করা হচ্ছিল, এ খাতে ৬ হাজার ৩০০ কোটি থেকে ১১ হাজার ৩০০ কোটি ডলার ক্ষতি হবে। গত বছর মার্চ নাগাদ বিমান পরিবহন খাতে আয় কমেছে ২৫ হাজার ২০০ কোটি ডলার। এপ্রিল মাসে আয় কমে দাঁড়ায় ৩১ হাজার ৪০০ কোটি ডলার, যা করোনার আগের চেয়ে ৫৫ শতাংশ কম। এ বছর দেশে দেশে বিধিনিষেধ শিথিল করা হলেও বিমান ব্যবসার তেমন উন্নতি হয়নি।

বিশ্বব্যাপী করোনার প্রকোপে অনেক বিমান পরিবহন সংস্থাই বিমান পরিচালনা করতে পারছে না। কিছু দেশ এখনো বিমান চলাচল নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। বিমান সংস্থাগুলো বেশ চাপে আছে।

Print Friendly, PDF & Email