শিথিলতা দেখালে খারাপ হবে পরিস্থিতি - Jamuna.News
ব্রেকিং নিউজ

শিথিলতা দেখালে খারাপ হবে পরিস্থিতি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা : মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বিস্তার রোধে জারি রয়েছে বিধিনিষেধ। মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব মানা, অপ্রয়োজনে বাইরে চলাফেরা না করতে সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে তাগিদ দেওয়া হচ্ছে। অতি সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে ব্যক্তি পর্যায়ের সচেতনতার বিকল্প নেই বলেও সতর্ক করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

তবে অনেকেই এসব বিধিনিষেধ পরিপালনে দেখাচ্ছেন অনীহা। মাস্ক না পরেই কেউ কেউ চলাফেরা করছেন বাইরে। ফলে বাড়ছে অদৃশ্য ভাইরাসটির সংক্রমণ ঝুঁকি। আর এখানেই শনাক্ত হার কারণ দেখছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

করোনাভাইরাসে সংক্রমণ রোধে দেশের সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে আরোপ করা বিধিনিষেধ এবং ব্যক্তি পর্যায়ে দেওয়া নির্দেশনা বাস্তবায়নে শিথিলতার পরিচয় দিলে পরিস্থিতি খারাপ হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র ডা. নাজমুল ইসলাম এমন আশঙ্কার কথা জানিয়ে বলেন, জুনের ৪ তারিখ থেকে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। শনাক্ত হার মঙ্গলবার ১২ শতাংশের বেশি ছিল। সীমান্তবর্তী কিছু জেলায় স্বাস্থ্য প্রশাসনের পরামর্শে স্থানীয় প্রশাসন কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে। এটা বাস্তবায়নে আমরা জনগণের সহায়তা কামনা করি। কোনো জায়গায় শিথিলতার পরিচয় দিলে সেটি কারো জন্য ভালো ফলাফল বয়ে আনবে না।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্য অনুসারে, সীমান্তবর্তী জায়গাগুলোতে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রয়েছে। জয়পুরহাটে শতকরা হিসেবে শনাক্তের হার ২৫ শতাংশ, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২৯ শতাংশ আর রাজশাহীতে ২৩ শতাংশের বেশি।

সীমান্তবর্তী এসব জেলায় লকডাউন বা বিধিনিষেধ আরোপ করায় স্থিতি অবস্থা আছে। শনাক্ত হারের এই স্থিতি অব্যাহত রাখা গেলে ঊর্ধ্বগতি থেকে রেহাই মিলবে বলে মনে করছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

ভারতের সেরাম থেকে কেনা অক্সফোর্ডের টিকা আটকে যাওয়ায় দেশে বন্ধ রয়েছে করোনার টিকাদান। প্রথম ডোজ নিয়ে দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় আছে অন্তত ১৫ লাখের বেশি মানুষ। তবে সরকার এসব টিকাগ্রহীতাদের দ্বিতীয় ডোজ কোভিশিল্ড দিতে অক্সফোর্ডের টিকাটি সংগ্রহের নানামুখী চেষ্টা চালাচ্ছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, আমরা একাধিক টিকা ব্যবহার করার অনুমতি পেয়েছি, সেদিক থেকে আমরা ভাগ্যবান। শিগগির আমরা প্রথম ডোজের টিকাদান কর্মসূচি চালু করতে পারবো। অক্সফোর্ডের টিকার দ্বিতীয় ডোজের জন্য অপেক্ষমান ব্যক্তিরা যথা সময়ে টিকা পেয়ে যাবেন।

করোনার নমুনা সংগ্রহের ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের হাসপাতালের বুথটি আর্মি স্টেডিয়ামে স্থানান্তর করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিদেশগামী যাত্রীরা সেখানে নমুনা পরীক্ষা করাবেন। আমরা উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি কিছু অসাধু ব্যক্তি বিদেশগামী ব্যক্তিদের প্রতারিত করে আসছিল।

এসব প্রতারকদের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা নিয়েছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এই মুখপাত্র বলেন, দুষ্কৃতিকারী কাউকে কাউকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। এই ধরনের ঘৃণিত কাজ যারাই করবে, প্রত্যেককে আইনের আওতায় এনে শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email