দাম প্রকাশ করায় চীনের ক্ষোভ, টিকা পাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা - Jamuna.News
ব্রেকিং নিউজ

দাম প্রকাশ করায় চীনের ক্ষোভ, টিকা পাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা: সিনোফার্মের করোনা টিকার দাম গণমাধ্যমে প্রকাশ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে চীন। এর ফলে বাংলাদেশ ১০ ডলারে সিনোফার্মের করোনা টিকা পাবে কি না তা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।
তবে এ ঘটনাকে অনিচ্ছাকৃত ভুল বলে দুঃখ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ। একইসাথে চীনকে জরুরী ভিত্তিতে টিকা পাঠানোর অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ।
জানা গেছে, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের টিকা সংকট মোকাবেলায় বুধবার চীনা প্রতিষ্ঠান সিনোফার্মের তৈরি এক কোটি ডোজ টিকা কেনার অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

চীনের সাথে এ বিষয়ে গোপনীয়তা রক্ষার চুক্তি থাকায় টিকাগুলোর মূল্য জানাতে অস্বীকৃতি জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

অর্থমন্ত্রী আ.হ.ম. মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে গত ১৯ মে অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ভার্চুয়াল সভায় টিকা কেনার বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব অনুমোদন হয়।
বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. শাহিদা আক্তার সাংবাদিকদের জানান প্রতি ডোজ টিকা ১০ ডলার মূল্যে চীনের কাছ থেকে কেনা হবে। এ ঘটনার পর অতিরিক্ত সচিব ড. শাহিদা আক্তারকে ওএসডি করা হয়। সরকার চীনের কাছ থেকে টিকা কেনার বিষয়ে কিছুটা গোপনীয়তা অবলম্বনের চেষ্টা করলেও তথ্য ফাস হয়ে যায়। এতেই ক্ষেপে গেছে চীন। কারন দেশটি একই পরিমাণ টিকা শ্রীলংকার কাছে প্রতি ডোজ ১৫ ডলারে বিক্রি করেছে। এখন বাংলাদেশের কাছে কম দামে টাকা বিক্রি করার খবরে শ্রীলংকায় তোলপাড় চলছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, চুক্তি অনুযায়ী চীন চলতি মাসেই বাংলাদেশকে ৫০ লাখ ডোজ টিকা দেয়ার কথা ছিল। এখন যা পরিস্থিতি তাতে টিকা আপাতদৃষ্টিতে পাওয়া বেশ কঠিন হয় দাঁড়াল। বিশ্লেষকরা বলছেন, গত মাসে চীন বাংলাদেশকে জরুরী ভিত্তিতে ৫ লাখ ডোজ টীকা উপহার পাঠিয়েছে। বর্তমানে দেশে টিকার মজুদ আছে মাত্র দেড় লাখ ডোজ। সরকার বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়ার কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। তাছাড়া দ্বিতীয় ডোজের টিকা এখনও অনেক বাকি। চীন টিকা না দিলে দু একদিনের মধ্যে আবার টিকা কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাবার আশংকা রয়েছে।
এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া কোভেক্সের টিকার আরেকটা চালানা পেতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। যদিও এক লাখ ৬ হাজার ডোজ টিকা দুদিন আগে ঢাকা এসে পৌছেছে । তবে চাহিদার তুলনায় একেবারেই অপ্রতুল। উলেল্লখ্য, ভারত সরকারের মুখপাত্র শুক্রবার আবারও ঘোষণা দিয়েছে অদূর ভবিষ্যতে তারা কোনদেশকেই টিকা সরবরাহ করতে পারেব না। এ অবস্থায় দেশের টিকার সংকট জোড়ালো হবে বলে আশংকা রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email