উখিয়ায় ইউএনও'র গাড়ি ভাংচুর, আহত ২০ - Jamuna.News
ব্রেকিং নিউজ

উখিয়ায় ইউএনও’র গাড়ি ভাংচুর, আহত ২০

হেলাল উদ্দীন, উখিয়া (কক্সবাজার)  : কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলা সোনার পাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে নব নির্মিত স্কুল ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করতে গেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন আহমেদ ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আমিমুল এহসান খাঁন এর গাড়ি ভাংচুর করে একদল উশৃংখল জনতা।

রোববার বিকেলে সোনার পাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। এতে তিনজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। পুলিশের কয়েকজন সদস্যও আহত হয়েছে।

ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশীদ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রফিকুল ইসলাম৷

জেলা প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশীদ জানান, উখিয়া সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবন স্থাপন করতে গেলে উখিয়া ইউ এনও এবং এস্যিল্যান্ডের গাড়ি একদল উশৃংখল জনতা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে গাড়ি ভাংচুর করে। শিক্ষা অঙ্গনে এই ধরণের ঘটনা অবাঞ্চণীয়৷ যারা এই ঘটনায় জড়িত তাদের বিরুদ্ধে কঠোরভাবে আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে৷

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম জানান, রবিবার বেলা ৩টার দিকে স্কুলের ভবন স্থাপন কে কেন্দ্র করে ইউএন ও এস্যিল্যান্ডের গাড়িতে এলাকার কিছু দুষ্কৃত ব্যক্তি হামলা চালায়, পুলিশ বাধা দিলে আমার পুলিশের উপর ইট পাটকেল ছুটে, এর মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে ঘটনা নিয়ন্ত্রণের জন্য বিশেষ পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এসময় পুলিশ ও এলাকাবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়।

তিনি আরো জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে৷ যে কোন বিশৃংখলা দমন করতে জেলা পুলিশ বদ্ধ পরিকর৷

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজাম উদ্দীন আহমেদ এর মোঠফোনে এ বিষয়ে কথা বলতে যোগাযোগ করা হলে ব্যস্ত পাওয়া যায়৷

সহকারী কমিশনার (ভূমি) আমিমুল এহসান খাঁন জানান, সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে সরকারি স্কুল ভবন নির্মাণকে কেন্দ্র করে শিক্ষকদের উপর হামলা চালায় কিছু দুষ্কৃতিকারী। খবর পেয়ে আমি এবং ইউএনও ঘটনাস্থলে গেলে তারা অতর্কিত ভাবে আমাদের গাড়ীতে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে আমার গাড়ীর দুই সাইডের গ্লাস এবং ইউএনও গাড়ীর সাইডে ও পেছনের গ্লাস ভেঙ্গে যায়। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহমেদ সঞ্জুর মোর্শেদ জানান, সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের একটি নতুন ভবন নির্মাণকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় লোকজনের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিলো। এর মধ্যে প্রশাসনিক জটিলতা সম্পন্ন করে আজ রোববার ওই ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন আহমেদ ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)। কিন্তু ওই সময় বিরোধীতাকারী লোকজন ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের বাধা দেন। তারা উত্তেজিত হয়ে নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর গাড়ি ভাংচুর করেছে। এর মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে ঘটনা নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এসময় পুলিশ ও এলাকাবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়।

স্কুল এর পার্শ্ববর্তী স্থানীয় লোকজন দাবি করেন, পুলিশের ছোঁড়া শর্টগানের গুলিতে মহিলাসহ স্থানীয় তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়। এছাড়া আহত হয় আরো অন্তত ১৫ জনের বেশি।

অন্যদিকে স্থানীয় লোকজনের হামলায় পুলিশের কয়েকজন সদস্যও আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি।

Print Friendly, PDF & Email