মার্কেট খোলার দাবিতে রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ - Jamuna.News
ব্রেকিং নিউজ

মার্কেট খোলার দাবিতে রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ

ডেস্ক নিউজ: করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় দেশে সোমবার থেকে ৭ দিনের লকডাউন চলছে। লকডাউনে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দোকানপাট, শপিংমল বন্ধ থাকবে। কিন্তু লকডাউনে দোকানপাট শপিং মল খুলে দিতে রাজধানী ঢাকাসহ চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেট, খুলনা, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইলসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় ব্যবসায়ী দোকানদাররা মানববন্ধন বিক্ষোভ ,মিছিল করেছে।
মঙ্গলবার সকালে গাউসিয়া-নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা বিক্ষোভ করেন। সকাল থেকে একই দাবিতে রাজধানীর নিউমার্কেট ও মিরপুরসহ একাধিক এলাকার ব্যবসায়ীরা বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেন।

মিরপুর-১০ নম্বর গোল চত্বরের পাশে বেলা ১১টার দিকে শতাধিক ব্যবসায়ী ব্যানার হাতে নিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করছেন। তাদের দাবি, লকডাউনে যেন স্বল্প পরিসরে ৬ থেকে ৮ ঘণ্টার জন্য হলেও দোকানপাট খুলে দেওয়া হয়।

মার্কেট খুলে দেওয়ার দাবিতে রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকায় সড়কে নেমে বিক্ষোভ করছেন দোকান মালিক-কর্মচারীরা। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়।
সিলেটে চলমান বিধিনিষেধ বা লকডাউন মানতে নারাজ ব্যবসায়ীরা। তারা জানিয়েছেন- এই লকডাউনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। সব কিছু স্বাভাবিক থাকলেও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা উচিত হচ্ছে না। নগরীর জিন্দাবাজার এলাকার কয়েকটি মার্কেটের ব্যবসায়ীরা নিজ নিজ মার্কেটের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। পরে তারা বিক্ষোভ মিছিল সহকারে নগরীর কোর্টপয়েন্টের হাসান মার্কেট এলাকায়। সেখানে মার্কেট খুলে দেয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে।
নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শিমরাইল এলাকায় আজও মার্কেট খোলার দাবিতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।
বেলা ১১টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শিমরাইল মোড় হাজী আসহান উল্লাহ সুপার মার্কেটের সামনে ১৫ মিনিটের জন্য সড়ক অবরোধ করে দুই শতাধিক ব্যবসায়ী বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেন।

এদিকে টাঙ্গাইলে মার্কেট ও শপিংমল খোলা রাখার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে ব্যবসায়ীরা।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের সমবায় সুপার মার্কেটের সামনে এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। বিক্ষোভে শহরের বিভিন্ন মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দসহ সাধারণ ব্যবসায়ীরা অংশগ্রহণ করেন।

মার্কেট নেতারা বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে আমাদের ব্যবসা ভালো যাচ্ছে না। ঈদ উপলক্ষে ইতোমধ্যে পোশাক সংগ্রহ করা হয়েছে। এই অবস্থায় লকডউনের কারনে দোকান খোলা রাখতে না পাররে আমাদের পথে বসা ছাড়া আর কোন উপায় থাকবে না। দোকান খোলা রাখতে সরকার ঘোষিত যে কোন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবো।

Print Friendly, PDF & Email