ব্রেকিং নিউজ

ঘুমের ভেতর দুঃস্বপ্নে শক্তিশালী হয় মস্তিষ্ক

লাইফস্টাইল ডেস্ক : ‘নাওয়া-খাওয়া-ঘুম’ এই তিন ছাড়া মানুষের বেঁচে থাকা প্রায় অসম্ভব। দিনান্তে পাখিরা যেমন নীড়ে ফিরে মানুষও ঘুমের দেশে ডুব দেয়। কিন্তু সেই ঘুমের ভেতরে অনেকেই অনেক সময় বাজে কিংবা ভয়ানক কোনও স্বপ্ন দেখে চিৎকার করে জেগে উঠে। স্বপ্ন যেমন সুখের হয় তেমনেই দুঃখেরও হয়। হয় ভয়েরও।

কিন্তু গবেষকরা বলছেন, ঘুমের ভেতর দুঃস্বপ্ন দেখলে মস্তিষ্কের কার্যকারিতার ক্ষমতা অধিকাংশ ক্ষেত্রে অনেকগুণ বেড়ে যায়।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন ও সুইজারল্যান্ডের জেনেভা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নায়ুবিজ্ঞানীরা এক গবেষণার ফলাফলে এমন তথ্য জানিয়েছেন। যেখানে ঘুমের ভেতর মানুষের স্বপ্ন দেখায় মস্তিষ্কের প্রভাব নিয়ে গবেষণা চালিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

গবেষণায় প্রাপ্ত ফলাফলে জানানো হয়, ঘুমের ভেতর দুঃস্বপ্ন দেখতে কোনও ক্ষতি নেই। বরং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তা মস্তিষ্ককে আরও প্রখর ও শাণিত করে। স্মরণশক্তি বেড়ে যায়।

স্নায়ুবিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, উদ্বেগজনক অসুস্থতার কারণে মানুষ প্রতিনিয়ত যেসব স্বপ্ন দেখে সেগুলো শরীরে এক ধরনের থেরাপি হিসেবে কাজ করে।

১৮টি বিষয়ে ৮৯ জন লোকের ঘুম থেকে ওঠার পর তাদের ডায়েরিতে স্বপ্ন ও দুঃস্বপ্নগুলোর বর্ণনা লিখার পর তাদের স্বাভাবিক আচরণ ও অনুভূতির সঙ্গে ওই গবেষণা মেলানো হয়।

গবেষকরা বলছেন, ঘুমের ভেতর মানুষ যেসব ভয়ঙ্কর স্বপ্ন দেখে সেগুলো বাস্তব জীবনে অত্যন্ত কার্যকর থেরাপি হিসেবে কাজ করে।

ঘুমের ভেতর দুঃস্বপ্ন বাস্তব জীবনে মানুষকে ভীতিকর পরিস্থিতিতে স্থির থাকতে ও ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া জানাতে সহায়তা করে বলে দাবি হিউম্যান ব্রেন ম্যাপিংয়ের।

কিন্তু ভয়ঙ্কর দুঃস্বপ্ন কোনও কোনও ক্ষেত্রে মানুষের মস্তিষ্কে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে বলেও সতর্ক করেন গবেষকরা।

Print Friendly, PDF & Email