ব্রেকিং নিউজ

স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতৃত্ব: মহানগর উত্তর দক্ষিণের দৌড়ে ডজনখানেক ছাত্রনেতা

ফিরোজা রহমান: আগামী ১০ ও ১১ নভেম্বর মহানগর উত্তর-দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ঢাকা মহানগর উত্তর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন নিয়ে সরগরম থাকছে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ এলাকা। প্রতিদিনই শত শত নেতাকর্মী নিয়ে শোডাউন দিচ্ছেন প্রত্যাশীরা।দুর্নীতি বিরোধী চলমান অভিযানের প্রেক্ষাপটে পরিচ্ছন্ন ও দুঃসময়ের রাজনৈতিক নেতারা পদ প্রত্যাশী। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি এবং বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতির সাথে জড়িত নেতারা এই দৌড়ে অংশগ্রহণ করলেও নগরের রাজনীতিতে অভিজ্ঞদের অগ্রাধিকার দেয়ার কথা চিন্তা করছেন শীর্ষ নেতৃত্ব ‌।
মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবকলীগের পদ প্রত্যাশীদের মধ্যে এগিয়ে রয়েছেন আবুল কালাম আজাদ। বিরোধী দলের সময় দীর্ঘদিন ছাত্র রাজনীতি করার পর আবুল কালাম আজাদ স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতিতে যুক্ত হন। বর্তমানে দক্ষিণ শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করা এই সাবেক ছাত্রনেতা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি পদের অন্যতম দাবিদার। তার অতীতের ত্যাগ এবং সাংগঠনিক অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা বিবেচনায় নিয়ে শীর্ষ নেতৃত্ব সিদ্ধান্ত নিবে এমনটাই প্রত্যাশা করেন তিনি। এরপরই স্বেচ্ছাসেবক লীগের পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান রানা ও আসাদুজ্জামান আসাদ। তাদের দাবি নগরীর প্রতিটি থানা ও ওয়ার্ডের অলিগলি সম্পর্কে তাদের সাংগঠনিক জানাশুনা রয়েছে। তাই নগরকেন্দ্রিক রাজনীতিতে শীর্ষ নেতৃত্ব তাদেরই প্রাধান্য দেবে এমনটাই প্রত্যাশা করেন।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবকলীগের পদ পেতে আরো আগ্রহী হলেন- আবুল কালাম আজাদ ,তারেক সাঈদ, মোস্তাফিজুর রহমান ইরান ,পপ্পী, খন্দকার সোহাগ, গোপাল সরকার, বাদল, কামরুল হাসান রিপন, আনিসুজ্জামান আনিস, শেখ আনিসুজ্জামান রানা, আসাদুজ্জামান আসাদ জাবেদ ইকবাল ওমর ফারুক প্রমুখ।
এছাড়া ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলনকে ঘিরে বেশ তৎপর কে এম মনোয়ারুল ইসলাম বিপুলের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা। প্রতিদিনই শত শত নেতাকর্মী নিয়ে বিপুল 23 বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে শোডাউন দিচ্ছে। উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিষয়টি ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এই শাখার নেতৃত্বে পেতে যাচ্ছেন দুজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিক ইসহাক মিয়া ও মনোয়ারুল ইসলাম বিপুল।
মিরপুর মোহাম্মদপুর বাড্ডা সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন শত শত নেতাকর্মী নিয়ে এদের বাইরে উত্তরের আর কোনো নেতাকে তেমন শোডাউন করতে দেখা যায় না।

Print Friendly, PDF & Email