ব্রেকিং নিউজ

৭ নম্বর বিপদ সংকেত জারি: জলোচ্ছাসের আশংকা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা :ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে জেলোচ্ছাসের আশংকা করে মংলা ও পায়রা বন্দরে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত জারি করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। একইসাথে দেশের বৃহত্তম বন্দর চট্টগ্রামে ৬ নম্বর সতর্ক সংকেত জারি করা হয়েছে। সন্ধ্যা সাতটায় বুলবুলের গতিবেগ পর্যবেক্ষণ করে এই সতর্ক সংকেত জারি করা হয়। একইসাথে উপকুলীয় অঞ্চলের প্রত্যেক জেলায় সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটিও বাতিল করেছে সরকার।

উল্লেখ্য ২০০৭ সিডরের সময় উপকূলীয় এলাকায় ১০ নম্বর বিপদ সংকেত জারি করা হয়েছিল।

ভয়ঙ্কর থেকে অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হল ‘বুলবুল’। একই সঙ্গে চলে এল পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উপকূলের আরও কাছে। বৃহস্পতিবার রাতেই গভীর নিম্নচাপ থেকে ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় (সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্টর্ম)-এ পরিণত হয়েছিল ‘বুলবুল’। এখন সেটি ‘ভেরি সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্টর্ম’ বা অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের কারনে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় গুরি গুরি বৃষ্টি হচ্ছে। উপকূলীয় এলাকায় বৃহস্পতিবার থেকে ভারী বর্ষণের সাথে ঝড়ো হাওয়া বইছে। বাতাসের গতিবেগও সমান তালে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘুর্ণিঝড়টি উপকূল থেকে মাত্র ৫০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, বাতাসের গতিবেগ ও ঘূর্ণিঝড়ে তান্ডবে উপকূলীয় এলাকায় ৭ ফুট পর্যন্ত জলোচ্ছাস হতে পারে। বুলবুল আরো গতি সঞ্চার করে বরিশাল, কুয়াকাটা, সুন্দরবন অথবা সাতক্ষীরা এলাকায় শনিবার বিকেল নাগাদ আঘান হানতে পারে।

 

আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, শুক্রবার দুপুর তিনটে নাগাদ ঘূর্ণিঝড়ের অবস্থান পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ থেকে প্রায় ৪৫০ কিলোমিটার দূরে। ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে তার দূরত্ব ৩১০ কিলোমিটার এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে ঘূর্ণিঝড় রয়েছে প্রায় ৫৫০ কিলোমিটার দূরে। আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, বঙ্গোপসাগরে বুলবুলের ঘূর্ণনের গতিবেগ ঘণ্টায় ১২০ থেকে ১৩০ কিলোমিটার। কলকাতা থেকে ‘বুলবুল’-এর দূরত্ব ৫৫০ কিলোমিটার।

প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email