ব্রেকিং নিউজ

জাবি ক্যাম্পাসে নিষিদ্ধ সভা-সমাবেশ-মিছিল

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট, জাবি : এবার ক্যাম্পাসে সব ধরনের সভা-সমাবেশ, মিছিল কিংবা কোনো অফিস বা আবাসিক এলাকায় শিক্ষার্থীদের অবস্থানে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বুধবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ অফিসের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক সালাম সাকলাইন স্বাক্ষরিত এক অফিস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেটের জরুরি সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৬ নভেম্বর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্লাস ও পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ইতোমধ্যে শিক্ষার্থীরা আবাসিক হলসমূহ ত্যাগ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরের দোকানপাটও বন্ধ করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মনে করেন, এ সময়ে ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে কোনো শিক্ষার্থীর অবস্থান সমীচীন নয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বাইরে এবং ভেতরে অবস্থানরত কোনো শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে সভা-সমাবেশ, মিছিল করতে পারবে না। এছাড়া কোনো অফিস বা আবাসিক এলাকায় অবস্থান করতে পারবে না।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনারোধ এবং সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান প্রদর্শন ও দায়িত্বশীল আচরণ করার জন্য বিজ্ঞপ্তিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এদিকে, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় বিক্ষোভ ও সন্ধ্যায় ভিসির বাসভবনের সামনে কনসার্টের (প্রতিবাদী) ঘোষণা দিয়েছেন।

বুধবার শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে সাইমুম মৌসুমী বৃষ্টি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত দুর্নীতির অভিযোগে জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের বিরুদ্ধে বেশ কিছু দিন ধরেই আন্দোলন চলছে। তার অপসারণ দাবিতে সোমবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে তাকে বাসভবনে অবরুদ্ধ করে রেখেছিলেন ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে আন্দোলনরতরা।

মঙ্গলবারসহ টানা ১১দিন প্রশাসনিক ভবন অবরোধ এবং দশম দিনের মতো সর্বাত্মক ধর্মঘট পালন করেন আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ফলে কার্যালয়ে যেতে পারছিলেন না উপাচার্য।

উল্লেখ্য, সিন্ডিকেটের জরুরি সভায় মঙ্গলবার বিকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ও আবাসিক হল সমূহ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা তা প্রত্যাখ্যান করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email